বাংলাদেশী তরুনের ১১ বার গিনেজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ড

বাংলাদেশের সর্বোচ্চ গিনেস রেকর্ডধারী হিসেবে গৌরব অর্জন করেছেন ফেনীর কনক কর্মকার

গিনেজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ড যে কারো জন্যেই স্বপ্নের মতো। কিন্তু কনক কর্মকার সেই স্বপ্নকে সত্যি করেছে। একবার নয় , দুবার নয়, পরপর ১১ বার গিনেজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নিজের নাম লিখিয়ে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ গিনেস রেকর্ডধারী হিসেবে গৌরব অর্জন করেছেন নোয়াখালীর কনক কর্মকার।

কনক কর্মকার – জন্ম ১৯৯৯ সালের ৭ আগস্ট মুদাফ্ফরগঞ্জ উপজেলার দৌলতপুর গ্রামে। স্কুল জীবন কেটেছে বেগমগঞ্জ সরকারি পাইলট হাই স্কুলে। পড়াশোনা করছেন ফেনী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে। হয়তো ভাবছেন মফস্বলের এক ছেলে কি করে এতগুলো গিনেজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ড করলো। এই অসম্ভবকে সম্ভব করেছেন কঠিন অধ্যাবসায়, ও পরিশ্রমের মাধ্যমে। মূলত বিভিন্ন জিনিস ব্যালেন্স করেই তিনি গড়েছেন এই রেকর্ড।

কাগজের কাপ , গিটার , বাস্কেটবল, ফুটবল , চেয়ার থেকে শুরু করে ডিম পর্যন্ত ব্যালেন্স করার রেকর্ড করেছেন কনক কর্মকার। আর এই অর্জন এর গল্পটাও কিন্তু খুব বেশি সময় আগের না মাত্র ২ বছর আগে শুরু। বরাবরই ফুটবল প্রিয় এই তরুণ ইউটিউবে ভিডিও দেখে জানতে পারেন ফ্রিস্টাইল ফুটবল সম্পর্কে। এরপর ফুটবল নিয়ে নানা কসরত করা শুরু করেন। পাশাপাশি শুরু করেন কাপ ব্যালেন্সিং। গিনেজ বুক অফ ওয়ার্ল্ডের ওয়েবসাইট ঘেটে জানতে পারেন সর্বোচ্চ কাপ ব্যালেন্সিং এর রেকর্ড রয়েছে ইতালিয়ান এক ব্যক্তির।

২০১৯ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি প্রথমবারের মতো কপালে ১,১৫০ টি কাগজের কাপ (গ্লাস) ৬৬ সেকেন্ড রেখে কণক কর্মকার প্রথমবার গিনেস বুকে তার নাম লেখান। যদিও কাজটি তিনি আরো আগেই করেছেন কিন্তু গিনেজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ড থেকে স্বীকৃতি পেতে সময় লেগে যায়।

এরপর ২০১৯ সালের ৪ এপ্রিল কপালের উপর ২৫ মিনিট গিটার ব্যালেন্স করার জন্য তিনি ২য় বার গিনেস বুকে নাম লেখান।

২০১৯ সালের ৫ জুন ঘাড় দিয়ে এক মিনিটে ৩৬ বার বাস্কেটবল ক্যাচ ধরার জন্য গিনেস বুক তার নাম লিখে নেয়।

এছাড়াও থুতনিতে ১৫ মিনিট ৩৯ সেকেন্ড গিটার ব্যালেন্স, হাতের তালুর বিপরীত পাশে ১৫টি ডিম ব্যালান্স করে রাখা, এক মিনিটে সর্বোচ্চ (১৬৩) বার হাঁটুর উপর ফুটবল ড্রপ দেওয়া, হাটুর উপর ৪ মিনিট ৬ সেকেন্ড ফুটবল ব্যালান্স করে রাখা , থুতনির উপর চেয়ার ৩৫ মিনিট ১০ সেকেন্ড ব্যালান্স করে রাখাকে বিশ্ব রেকর্ড হিসেবে স্বীকৃতি দেয় গিনেস বুক।

সর্বশেষ এ বছরের মে মাসে কপালে সবচেয়ে বেশি টিস্যু পেপারের রোল ব্যালেন্স করার বিশ্ব রেকর্ড করেন কনক। যদি আপনার প্রতিভা থাকে তবে কিভাবে গিনেজ বুকে নিজের নাম লেখাবেন তাও জানিয়েছেন কনক তার ফেসবুকে একটি ভিডিও পোস্ট করে।

এবার তার দৃষ্টি ১২ তম তথা ১ ডজন গিনেজ রেকর্ড করা। সেই লক্ষেই কাজ করে যাচ্ছেন কনক। তবে সেই রেকর্ড কি নিয়ে করবেন তা এখনো চমক হিসেবেই থাকছে। কি সেই চমক এবার সবার দৃষ্টি যেন সেদিকেই।

রাজশাহীর এন্ড্রু কিশোর যেভাবে বাংলাদেশের প্লেব্যাক সম্রাট

Comments are closed here.